নানা খাতে ই-সেবার পরিধি বাড়ছে – Nurunnaby Chowdhury (Hasive)

নানা খাতে ই-সেবার পরিধি বাড়ছে

প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠানে অতিথিরা
প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠানে অতিথিরা

ডিজিটাল বাংলাদেশের কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বর্তমান সরকারের নানা ধরনের ই-সেবার পরিধি বাড়িয়েছে। এ জন্য ই-সরকার কাজ করছে, যা জনগণ, বিশেষ করে প্রান্তিক ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছে উন্নত সেবা। যে কয়েকটি বিষয়ে সেবা পাচ্ছেন সাধারণ মানুষ সেসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও কর্মসংস্থান।

গতকাল রোববার ঢাকার রেডিসন হোটেল ব্লতে ‘‘ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রগতি এবং ভবিষ্যৎ করণীয়’’ নিয়ে আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান লার্ন এশিয়ার তৈরি ‘সম্ভাবনার ডিজিটাল বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।
প্রতিবেদনে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তির ওপর ভিত্তি করে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে পাঁচটি বিষয়ের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। এগুলো হলো যুবসমাজের কর্মসংস্থান, ই-সরকার, স্বাস্থ্যসেবার ঘাটতি দূর করা, শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ ও জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া। এসবের ভিত্তি হবে সব জায়গায় সহজ ইন্টারনেট সংযোগ। এ কাজকে এগিয়ে একটি রোডম্যাপও দেওয়া হয়েছে প্রতিবেদনে।

6ebe2da25b893ab54cb9eabfc8024d12-6
টেলিনর গ্রুপ এবং গ্রামীণফোনের উদ্যোগে আয়োজিত এ প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘দেশ এখন ডিজিটাল হয়ে যাচ্ছে এবং আমাদের এখন প্রয়োজন তথ্যপ্রযুক্তি নীতিমালা। ডিজিটাল সোসাইটির জন্য এমন একটি নিরাপদ জায়গা তৈরি করতে হবে যেখানে নারী, শিশুসহ আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো নিশ্চিন্তে থাকবে।’ এ জন্য সাইবার আইনের গুরুত্ব অনেক বলেও উল্লেখ করেন তিনি। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ ও গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী রাজীব শেঠি। অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রতিবেদন নিয়ে বিশেষ উপস্থাপনা দেন লার্ন এশিয়ার প্রধান রোহান সামা​রাজিব এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী।

ই-সেবার নানা দিক:

# ৪,৫৮২ ডিজিটাল ইউনিয়ন তথ্যসেবাকেন্দ্র থেকে পাওয়া যাচ্ছে ২০০ সেবা
# ১৫,৫০০ কমিউনিটি স্বাস্থ্যসেবা ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছেন গ্রামীণ নারীরা
৩ লাখে বেশি
# ফ্রিল্যান্সার ২০১৩ সালে আয় করেছেন ২ কোটি ১০ লাখ ডলার
# ২৭,০০০ মাল্টিমিডিয়া স্কুল সারা দেশে চালু আছে

Nurunnaby Chowdhury (Hasive)

This is Nurunnaby Chowdhury (Hasive) from Bangladesh. I work with Wikipedia since 2004 but I started contributing in 2008 on Bengali Wikipedia, Commons & Meta. I am one of Administrator of Bengali Wikipedia now and Director of Wikimedia Bangladesh. Also I am involve with Open Knowledge Foundation Network (OKFN) as Bangladesh Ambassador and Core Member of Creative Commons Bangladesh. Beside that I involve Open Source, Science, Math Olympiad activities since 2006. As job I work as Journalist & Social Media Interaction Expert of Highest Circulated Bengali newspaper in Bangladesh. My five book published already in our National Book Fair.

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *