"> অ্যাপ চুরি করছে আপনার তথ্য ও অর্থ!! – Nurunnaby Chowdhury

অ্যাপ চুরি করছে আপনার তথ্য ও অর্থ!!

279 0

নানা ধরনের অ্যাপ প্রতিনিয়ত আমরা ব্যবহার করি। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই বিনামূল্যে প্রাপ্ত নানা অ্যাপ আমরা কোন ধরনের চিন্তা ভাবনা না করেই ইনস্টল করি। এ ধরনের সব অ্যাপই কিন্তু ভালো নয়। বিশেষ করে, এমন অনেক অ্যাপই আছে যা ব্যবহারকারীর তথ্য যেমন চুরি করে তেমনি অনেক সময় অর্থও চুরি করে। এমন অভিযোগ নানা সময়ে পেলেও এ ধরনের অ্যাপের বিরুদ্ধে তেমন ব্যবস্থা নেওয়া হতো না। তবে এবার শক্ত অবস্থান নিয়েছে বিশ্বখ্যাত সার্চ ইঞ্জিন গুগল। গুগল সম্প্রতি তাদের প্লে স্টোরে থাকা অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য তৈরি এমন ক্ষতিকার ২৫টি অ্যাপ মুছে ফেলেছে। অভিযোগ উঠেছিল এ অ্যাপগুলো ফেসবুক থেকে তথ্য চুরি করছে। সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান এভিনার পক্ষ থেকে এ ধরনের ক্ষতিকারক অ্যাপগুলো সম্পর্কে গুগলকে জানানো হলে গুগল সেগুলো নিয়ে অধিকতর অনুসন্ধান করে এবং ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করে এমন ২৫টি অ্যাপ প্লে স্টোর থেকে মুছে ফেলে। তবে উপকারী নানা ধরনের অ্যাপও কিন্তু রয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশ ফোনবুক অ্যাপে একসঙ্গে সকল থানার পুলিশের নম্বর পাওয়া যায়।

এ ধরনের অ্যাপগুলো ফেসবুকের লগইনসংক্রান্ত নানা ধরনের তথ্য হাতিয়ে নেয়। এসব অ্যাপে বিশেষভাবে ম্যালওয়্যার বা ক্ষতিকর প্রোগ্রাম যুক্ত করা থাকে, যা মোবাইল ফোন থেকে ফেসবুকে লগইন করার সময় পাসওয়ার্ডের মতো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রেকর্ড করে রাখে। পরবর্তীতে এসব তথ্যাদি অন্যদের কাছে বিক্রি করা হয়। অভিযুক্ত অ্যাপগুলোর ব্যবহারকারীও অনেক। তথ্য অনুযায়ী, যে ২৫টি অ্যাপ মুছে ফেলা হয়েছে সেগুলো প্রায় ২০ লাখ বার ডাউনলোড হয়েছে।

এ অ্যাপগুলো মূলত ব্যবহারকারীদের নতুন ওয়ালপেপার, স্ক্রিনশট এডিটর, ওয়েদার অ্যাপ, ফ্ল্যাশ লাইট ইত্যাদি বিনামূল্যে পাওয়ার কথা বলে ব্যবহারকারীদের ধোঁকায় পেলে দেয়। নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের মতে, এ ধরনের অ্যাপগুলো খুবই ক্ষতিকর তাই তাদের মোবাইলে এ ধরনের অ্যাপ আছে তাদের দ্রুত অ্যাপগুলো মুছে ফেলাই ভালো। নিরাপত্তা গবেষকদের মতে, যে ২৫টি অ্যাপ মুছে ফেলা হয়েছে গুগল প্লে স্টোর থেকে সেগুলো প্রায় ২০ লাখের বেশি ডাউনলোড হয়েছে। এসব অ্যাপ মূলত মোবাইল ব্যবহারকারীদের ওয়ালপেপার, স্ক্রিনশট, আবহাওয়া তথ্য ইত্যাদি দেখিয়ে ব্যবহারকারীদের ধোঁকা দেয়। যাদের মোবাইল ফোনে এ ধরনের অ্যাপ রয়েছে সেগুলো যত দ্রুত সম্ভব মুছে ফেলারও অনুরোধ জানিয়েছে নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে এবং নিজের ব্যক্তিগত নানা তথ্যাদির নিরাপত্তার জন্য এ ধরনের অ্যাপ মোবাইল থেকে মুছে ফেলাই ভালো।

সম্প্রতি ফেসবুকের তথ্য চুরির অভিযোগে যে ২৫টি অ্যাপ প্লে স্টোর থেকে মুছে ফেলা হয়েছে সেগুলো হলো:

  • ফাইল ম্যানেজার
  • সুপার ব্রাইট ফ্ল্যাশলাইট
  • অ্যাকুরেট স্ক্যানিং অব কিউআর কোড
  • কম্পোজিট জেড
  • আইহেলথ স্টেপ কাউন্টার
  • উক্সিয়া রিডার
  • জাঙ্ক ফাইল ক্লিনিং
  • প্যাডেনাফটার
  • সুপার ওয়ালপেপার্স ফ্লাশলাইট
  • ওয়ালপেপার লেভেল
  • কনট্যুর লেভেল ওয়ালপেপার
  • আইপ্লেয়ার অ্যান্ড আইওয়ালপেপার
  • ভিডিও মেকার
  • কালার ওয়ালপেপার্স
  • পেডোমিটার
  • পাওয়ারফুল ফ্ল্যাশলাইট
  • সলিটায়ার গেম
  • ক্ল্যাসিক কার্ড গেম
  • সিনথেটিক জেড
  • স্ক্রিনশট ক্যাপচার
  • ডেইল হরোস্কোপ ওয়ালপেপার্স
  • প্লাস ওয়েদার
  • এনিমি লাইভ ওয়ালপেপার
  • কম ডট টাইপ ডট ফিকশন অ্যাপ
মুছে ফেলার তালিকায় থাকা একটি অ্যাপ

যেহেতু ফেসবুক থেকে এ অ্যাপগুলো তথ্য চুরির অভিযোগে অভিযুক্ত তাই ফেসবুকের পক্ষ থেকেও গ্রাহকদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে থার্ডপার্টির যে কোন অ্যাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বনের। যারা ইতিমধ্যে তৃতীয় পক্ষের এ ধরনের অ্যাপের মাধ্যমে ফেসবুকের লগ-ইন করেছেন বা অ্যাকসেস দিয়েছেন তাদের দ্রুত ফেসবুকের সেটিংস থেকে সে অ্যাপ বা ওয়েবসাইটগুলো মুছে ফেলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ কাজটি করতে আইওএস বা অ্যান্ড্রয়েড থেকে ফেসবুক অ্যাপ চালু করুন বা ব্রাউজার থেকে ফেসবুক ডটকমে যান। সেখান থেকে সেটিংস মেনুতে গিয়ে ‘অ্যাপস অ্যান্ড ওয়েবসাইটস’ ক্লিক করুন। এতে নতুন একটি মেনু পাবেন। সেখানে ফেসবুক ব্যবহার করে সাইনইন করা সব থার্ড পার্টি অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের তালিকা পাবেন। যেসব অ্যাপে আর ফেসবুকের সংযোগ চান না, সেটি সরিয়ে দিন। এর মাধ্যমে আপনার ফেসবুক এ ধরনের অ্যাপ কিংবা ওয়েবসাইট থেকে মুক্ত থাকবে।

শুধু যে তথ্য চুরির অভিযোগেই এ ধরনের অ্যাপগুলো মুছে ফেলা হয়েছে এমন নয়। এর আগেও তথ্য চুরির অভিযোগে অনেকগুলো ক্যামেরা ভিত্তিক অ্যাপ প্লে স্টোর থেকে মুছে ফেলেছে গুগল। এখনও অনেকেই নানা ধরনের ক্যামেরা অ্যাপ ব্যবহার করেন যা মোবাইলের ব্যক্তিগত তথ্য চুরির ক্ষেত্রে সহায়তা করে। এ ধরনের অ্যাপগুলো ব্যবহার থেকে বিরত থাকার পাশাপাশি যাদের মোবাইল ফোনে এ ধরনের অ্যাপ আছে সেগুলো যত দ্রুত সম্ভব মুছে ফেলার পরামর্শ দিয়েছে নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা। গুগলের নানা প্রযুক্তি নিয়মিত ভাবেই এ ধরনের অ্যাপের বিরুদ্ধে কাজ করছে। এছাড়াও গুগলের হোম ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমে অ্যাপ চালুর সুযোগও রেখেছে।

ফেসবুকের তথ্য চুরির পাশাপাশি অ্যান্ড্রয়েড ফোন থেকে গোপনে অর্থ চুরি করা অভিযোগও উঠেছে বেশ কিছু অ্যাপের বিরুদ্ধে। এ ধরনের অ্যাপগুলোকে বিপদজনক বলেও উল্লেখ করেছেন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা। গোপনে মোবাইলে থাকা অর্থ খরচ করে বিভিন্ন সেবার সাবসক্রিপশন কিনতে থাকে এ ধরনের অ্যাপগুলো।

এমন চমকপ্রদ অ্যাপ বিপদজনক

সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান সফোসের পক্ষ থেকে এ ধরনের বেশ কিছু ক্ষতিকর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশনের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। যতদ্রুত সম্ভব এ ধরনের অ্যাপ দ্রুত মোবাইল থেকে আনইনস্টল করে ফেলার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। এ ধরনের একটি তালিকা সফোসের পক্ষ থেকে গুগলের কাছেও দেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এসব অ্যাপ কৌশলে দামি সাবসক্রিপশন কিনতে থাকে। এগুলো মূলত ‘ফ্লিসওয়্যার অ্যাপস’ নামে পরিচিত। এসব অ্যাপ ব্যবহারকারীর কাছ থেকে ব্যবহারকারীর শর্তাবলি (টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন) লুকিয়ে রাখে। এরপর ব্যবহারকারীর অজান্তেই শত শত ডলারে সাবসক্রিপশন চালু করে দেয়। এসব অ্যাপে কৌশলে ব্যবহারকারীদের অজান্তেই সাবসক্রিপশন বাটন চাপার বদলে ব্যাক বাটন চাপলে সাবসক্রিপশন চালু হয়ে যায়।

সম্প্রতি এমন অভিযোগের ভিত্তিতে গুগল প্লেস্টোর থেকে প্রায় ১৪টি অ্যাপ মুছে ফেলেছে। অ্যাপগুলো হচ্ছে:

  • ওল্ড মি-সিমুলেট ওল্ড ফেস
  • রিকভার ডিলিটেড ফটোজ
  • সার্চ বাই ইমেজ
  • ফটো কনভার্টার
  • মজিফন্ট
  • কমপ্রেস ভিডিও
  • ডায়নামিক ওয়ালপেপার
  • গেমট্রিস ওয়ালপেপার
  • মন্টেজ-হেল্প ইউ মেক কুল ভিডিওস
  • মাই রেপ্লিকা
  • প্র্যাঙ্ক কল
  • ফটো ব্যাকআপ
  • ভিডিও ম্যাজিশিয়ান
  • এক্সস্লিপ
  • জয়না ওয়ালপেপার
হুট করেই কোন অ্যাপ ইনস্টল করা নয়..

নিজের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি রোধে বা অর্থ চুরি রোধে এখনই সতর্কতা অবলম্বন করাটা জরুরি। প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের মতে, নানা ধরনের অ্যাপ থাকে প্লেস্টোরে। হুট করেই কোন ধরনের অ্যাপ মোবাইলে ইন্সটল করে ফেলা ঠিক নয়। প্রতিটি অ্যাপ ইনস্টল করার পূর্বে উক্ত অ্যাপটি মোবাইল ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে কি কি ধরনের অ্যাকসেস নিতে চাচ্ছে সে বিষয়গুলো মনযোগ দিয়ে দেখারও অনুরোধ জানিয়েছে তারা। নিজের তথ্য বা অর্থ সুরক্ষিত রাখতে নিজেকেই সতর্কতা অবলম্বন করে মোবাইল ব্যবহারের পরামর্শ প্রযুক্তি বিশ্লেষকদের।

Leave a Reply