"> মুক্ত জ্ঞানের আসর থেকে.. – Nurunnaby Chowdhury

মুক্ত জ্ঞানের আসর থেকে..

237 0

জ্ঞান হবে মুক্ত, তথ্য হবে সবার জন্য, থাকবে সবার হাতের নাগালে। আয়োজনের মূল বিষয় এমনই। জেনেভায় পৌঁছেই এসব বিষয়ে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট থেকে কী বলা যায়, তা ভাবনায় ছিল। জেনেভার সেন্টার ইন্টারন্যাশনাল ডি কনফারেন্সে (সিআইসিজি) লাল-সবুজ টি-শার্ট পরে গেলাম। ফলও পাওয়া গেল হাতেনাতে। মুক্ত জ্ঞান (ওপেন নলেজ) নিয়ে সম্মেলনের আয়োজক ওপেন নলেজ ফাউন্ডেশন নেটওয়ার্কের (ওকেএফএন) সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক রাফিউস পোলক বুকে টেনে নিলেন আমাকে! বললেন, ‘আর ইউ কাম ফ্রম বাংলাদেশ?’ অভিভূত আমি মাথা নেড়ে সায় দিলাম। পোলক খুশি, বললেন, ‘তোমার টি-শার্ট দেখেই বুঝতে পেরেছি।’ বোঝা গেল পোলক বাংলাদেশের খোঁজখবর রাখেন। এর পরই ওকেএফএনের অনেকেই এসে পরিচিত হতে লাগলেন।

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে তৈরি পোশাকশিল্পের ভয়াবহ দুর্ঘটনা বিশ্বব্যাপী আলোচিত। তাই তিন দিনের ওপেন নলেজ সম্মেলনে এ নিয়ে কথা বলার জন্য একটা প্রস্তুতি আগে থেকেই ছিল। বিভিন্ন দেশের তৈরি পোশাক শিল্পের তথ্য ইন্টারনেটে তুলে ধরতে আয়োজন করা হয় বিশেষ তথ্য প্রদর্শনীর (ডেটা এক্সপিডিশন)। সম্মেলনের পাশাপাশি চলেছে এ প্রদর্শনী। এতে আলোচনা করা হয় কীভাবে তৈরি পোশাকশিল্পের তথ্য ওয়েবে তুলে ধরা যায়, সেই প্রক্রিয়া নিয়ে।এখানে বাংলাদেশের নাম বিশেষভাবে উঠে আসে। এ নিয়ে হয় আলোচনাও।

বাংলাদেশে ওকেএফএনের দূত হিসেবে তৈরি পোশাকশিল্প নিয়ে একটি উপস্থাপনা দিতে হয়। যাতে আমাদের তৈরি পোশাকশিল্পের অবস্থান সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরার চেষ্টা করি। তবে সূত্র উল্লেখ করতে গিয়ে যখন বাংলাদেশে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) ওয়েবসাইটে যাওয়া হলো, তখন দেখা গেল এই সংগঠনের সদস্য অর্থাৎ তৈরি পোশাক কারখানার মালিকদের বিস্তারিত তেমন তথ্য নেই। তথ্য না থাকায় অন্যদের সামনে বেশ বিব্রতই হতে হলো!

সম্মেলনে যোগ দেয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অনেকেই।

২০১৩ সালের ১৬ থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে এই সম্মেলন। পুরো সম্মেলনে উল্লেখযোগ্য একটা ঘটনা ছিল সুইজারল্যান্ড সরকারের নিজস্ব সব তথ্য মুক্ত করে দেওয়া। তথ্যগুলো ওপেন ডেটা সুইজারল্যান্ড ঠিকানার ওয়েবসাইটে আছে। যে কেউ এগুলো ব্যবহার করতে পারবেন। ওকেএফএন এবং ওকেএফএন সুইজারল্যান্ড আয়োজিত মুক্ত জ্ঞানের এ আসরের স্লোগান ছিল ‘ওপেন ডেটা—ব্রড, ডিপ কানেক্টেড’। এবারই প্রথম বাংলাদেশ এ সম্মেলনে যোগ দেয়।

নানা আয়োজনে ভরা

তথ্য যাতে সবার হাতের নাগালে থাকে এবং সহজেই ব্যবহার করা যায়, এমন পদ্ধতিতে থাকতে হবে। অর্থাৎ তথ্য যিনিই যেভাবেই দেন না কেন, সেটি যেন সহজে পাওয়া যায়। এবারের আয়োজনে ওপেন ডেটা নিয়ে সেমিনার ও কর্মশালায় এ বিষয়ে জোর দেওয়া হয়। তথ্যকে সহজে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সবার কাছে তুলে ধরার এ প্রক্রিয়ায় সাধারণ ব্যবহারকারীরা যাতে দ্রুত ও সহজে তথ্য পেতে পারে, সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন ওপেন ডেটা বিশেষজ্ঞরা। আর তাই তিন দিনের পুরো আয়োজনে জনগণের জন্য কীভাবে সহজেই সরকার এবং সরকারি তথ্যগুলো সহজে ব্যবহার-উপযোগী করা যায়, তা নিয়ে ছিল কারিগরি কর্মশালা। এসবের মূল বিষয়গুলো ছিল মুক্ত বিজ্ঞান ও গবেষণা, ডিজিটাল সামাজিক উদ্ভাবন, মুক্ত শিক্ষা, মুক্ত সংস্কৃতি, ক্রিয়েটিভ কমন্স ইত্যাদি। ওকেএফএনের প্রধান নির্বাহী লাউরা জেমস জানান, মুক্ত জ্ঞানের পরিধি বাড়াতে সারা বিশ্বেরই প্রয়োজন এ কাজের বিষয়গুলোকে ছড়িয়ে দেওয়া।

অংশগ্রহণকারীদের কথা

আয়োজনটা ছিল মুক্ত জ্ঞান, উন্মুক্ত সোর্সকোড নিয়ে কাজ করেন এমন ব্যবহারকারী, গবেষক এবং আন্দোলনকারীদের (অ্যাক্টিভিস্ট) জন্য। আর তাই সম্মেলনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারি শীর্ষ কর্মকর্তারা যেমন ছিলেন তেমনি ছিলেন গবেষক, উদ্যোক্তা, ডেটা বিশেষজ্ঞ, ইউএনডিপি, ইউনিসেফ, ইউনেসকো, বিশ্বব্যাংকসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরাও। রাফিউস পোলক বলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বর্তমানে ওপেন ডেটা বেশ শক্তিশালী। আমরা তাই বিষয়টিকে বিভিন্নভাবে সহজে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। তাই সম্মেলনে এ বিষয়ে একাধিক আয়োজন ছিল।’

সম্মেলনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ওকেএফএন দূতরা অংশ নিয়েছেন। ওকেএফএন ব্রাজিলের দূত এভারটন জেনেলা জানান, ওকেএফএন দূতদের জন্যও এ সম্মেলনে অনেক কিছু শেখার ছিল। সৌদি আরবের যোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ই-গভর্নমেন্ট আয়োজনের নলেজ ম্যানেজার আতিফ আবদুল রহমান এবং ফিনল্যান্ডের আইন মন্ত্রণালয়ের ইউনিট অব ডেমোক্রেসির প্রকল্প ব্যবস্থাপক জাক্কো কোরহোনেন সম্মেলনে সরকারি বিভিন্ন কার্যক্রমের বিষয়ে নিজেদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন।

‘আমরা অনেক দিন ধরেই হংকংয়ে ওপেন ডেটা নিয়ে কাজ করছি। এতে ইতিমধ্যে সাধারণ মানুষ বিভিন্ন সেবা সহজেই পেয়ে যাচ্ছে।’ বললেন ওপেন ডেটা হংকংয়ের পরিচালক মার্ট ভ্যান ডি ভেন।

সম্মেলনে বাংলাদেশের বেশ কিছু বিষয় নিয়েও হয় আলোচনা।

পরিবহনের তথ্য ও প্রদর্শনী

সম্মেলনের নানা আয়োজনের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল ওপেন ট্রান্সপোর্ট ডেটা শীর্ষক আয়োজন। এতে নির্দিষ্ট শহরের সব তথ্য কীভাবে ওয়েবসাইটের পাশাপাশি মুঠোফোনের মানচিত্রের সাহায্যে ব্যবহার করা যায়, তা আলোচনা করা হয়। এ বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন কাজ করছেন ইতালির ওপেন ইনোভেশনবিষয়ক প্রকল্প ট্রেন্টোরাইজের ওপেন ডেটা প্রজেক্ট সমন্বয়ক ফ্রান্সেসা ডি চিয়ারা জানান, এ পদ্ধতিতে যদি শহরের সব ট্রান্সপোর্ট ডেটা ওয়েবে মানচিত্রে যুক্ত করা যায়, নির্দিষ্ট সে শহরের সাধারণ মানুষদের জন্য এটি দারুণ হবে।

ওপেন নলেজ সম্মেলনের ছবি ও তথ্য পেতে ওপেন নলেজ সম্মেলন ২০১৩

** লেখাটি ২০১৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর প্রথম আলোতে প্রকাশিত

Leave a Reply